অভিনয়কে বিদায় বলিউড অভিনেত্রীর, বিয়ের পরই ইসলামিক নিয়মে পদযাত্রা শুরু

গত অক্টোবরের শুরুতেই ১৫ বছরের অভিনয় ক্যারিয়ারের ইতি টানার ঘোষণা দিয়ে চমকে দিয়েছিলেন বলিউড অভিনেত্রী সানা

খান! মাস দেড়েকের ব্যবধানে আরো একবার চমকে দিলেন এই অভিনেত্রী সানা খান! বিগ বস সিজন ৬-এর সুবাদে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে উঠে এসেছিলেন সানা। সালমান খানের ঘনিষ্ঠ নায়িকা

হিসেবেই বলিউডে পরিচয় তার। গেল মাসে বলিউড ছাড়াও ঘোষণা দিয়ে ডুব দিয়েছিলেন সানা খান। আর এবার ফিরলেন বিয়ের সংবাদ নিয়ে! গতকাল শুক্রবার রাতে সুরাটে ‘জয় হো’ খ্যাত এই অভিনেত্রী বিয়ে করেছেন। স্পটবয়ের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে

সানার বিয়ে হয়েছে মুফতি অনসের সঙ্গে। সানা খান ও মুফতি অনসের এই জাঁকজমকহীন বিয়ের আসরের প্রথম ছবি ও ভিডিও ইতিমধ্যেই সামনে এসেছে। জানা গেছে ‘বিগ বস’ খ্যাত অপর তারকা এজাজ খানের সৌজন্যেই নাকি মুফতি অনসের সঙ্গে প্রথম পরিচয় সানার। বিয়ের আসরে মাথায় সাদা হিজাব, পরনে

দুধসাদা পোশাকে পাওয়া গেল সানাকে। কনের সঙ্গে সাযুজ্য রেখে সাদা কুর্তা-পাজামায় সেজেছিলেন সানার বর। এই বিয়ের আসর পরিবার ও হাতেগোনা বন্ধুদের উপস্থিতিতেই বসেছিল। ভিডিওতে নবদম্পতিকে সৌজন্য বিনিময় করতে দেখা গেল, এরপর কেক কেটে নতুন জীবনের সেলিব্রেশন করলেন সানা খান! গত

অক্টোবরের ৮ তারিখে নিজের সোশ্যাল মিডিয়ার দেওয়ালে সানা একটি দীর্ঘ বার্তা পোস্ট করে গ্ল্যামার দুনিয়া থেকে বিদায় নেওয়ার ঘোষণা দেন। পোস্টের ক্যাপশনে সানা খান লেখেন- আমার সবচেয়ে খুশির মুহূর্ত। আল্লাহ আমায় পথ দেখাক এই যাত্রায়। আমাকে নিজেদের দোয়ায় স্মরণে রাখবেন। সানা আরও লেখেন, পৃথিবীতে জন্ম নিয়ে মৃত্যু পরবর্তী জীবনের উন্নতির জন্য কাজ  দরকার।

সৃষ্টিকর্তার নির্দেশ মতো যদি একজন ভৃত্য তার জীবন যাপন করেন তাহলেই ভালো। সবসময়ে অর্থ ও খ্যাতির পিছনে ছুটে বেড়ানোর অর্থহীন। বিগ বস তারকা যোগ করেন- আমি ঘোষণা করছি আজ থেকে আমি শোবিজের দুনিয়া, সেই জীবনশৈলীকে আমি বিদায় জানাচ্ছি। আজ থেকে আমি মানব সেবার জন্য কাজ করব এবং সৃষ্টিকর্তার নির্দেশ মেনে চলব।

প্রত্যেক ভাইবোনকে আল্লাহর কাছে আমার জন্য প্রার্থনা করতে বলছি যাতে আমায় এই কাজে তিনি অনুমতি দেন এবং আমার সব ভুল-ত্রুটি মাফ করে উনি আমায় গ্রহণ করেন। সানাকে শেষ দেখা গিয়েছে হটস্টারের ‘স্পেশ্যাল ওপস’ ওয়েব সিরিজে। এর আগে গত বছরই বলিউডকে চিরতরে বিদায় জানান অভিনেত্রী জায়রা ওয়াসিম। জানান ‘ইমানের প্রতি দায়বদ্ধ’ থাকতেই এই সিদ্ধান্ত।

Author: hasib

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *