নাইজেরিয়ায় মসজিদে গুলি; নিহত ৫, ইমামসহ ৪০ জনকে অপহরণ

নাইজেরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় একটি মসজিদে সন্ত্রাসীদের গুলিতে কমপক্ষে ৫ জন নিহত হয়েছেন। জামফারা রাজ্যের ওই মসজিদটিতে নামাজ পড়ছিলেন মুসল্লিরা। এসময় অতর্কিত হামলা চালিয়ে এ হত্যাকাণ্ড চালায় অস্ত্রধারীরা। পরে মসজিদের ইমামসহ ৪০ জনকে তুলে নিয়ে যান তারা।

স্থানীয় সময় রোববার (২২ নভেম্বর) জামফারা পুলিশের মুখপাত্র মোহাম্মেদ সেহু জানান, মসজিদের ইমামের পেছনে নামাজের জন্য দাঁড়িয়েছিলেন ৩০ জন। ওই মুহূর্তে গুলি চালায় হামলাকারীরা। এ হামলা কারা চালিয়েছে তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো বলছে, গবাদিপশু চোরেরা মোটরসাইকেলে এসে মুসলমানদের জামাতে গুলি চালায়। প্রত্যন্ত অঞ্চল হওয়ায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা দুর্বল সেখানে। আর এই সুযোগ নিয়ে সন্ত্রাসীরা এ হামলা চালিয়েছে।

নাইজেরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে গবাদি পশু চোরের উৎপাত ব্যাপকভাবে লক্ষ্য করা যায়। প্রায়ই দল বেঁধে হামলা চালিয়ে শত শত গবাদিপশু নিয়ে যায় অস্ত্রধারীরা। ঘর-বাড়িতে হামলা চালিয়ে লুটপাটও করে তারা। নাইজেরিয়ার বহু জায়গায় শক্ত ঘাঁটি রয়েছে বেশ কিছু সশস্ত্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর।

আজারবাইজানের সেনাবাহিনী শুক্রবার জানিয়েছে, তারা আগদাম এলাকায় প্রবেশ করেছে। নাগার্নো-কারাবাখ অঞ্চলে যুদ্ধাবসানে রাশিয়ার মধ্যস্থতায় করা একটি চুক্তির অংশ হিসেবে আর্মেনিয়ার হস্তান্তর করতে যাওয়া তিনটি এলাকার প্রথমটি হচ্ছে আগদাম। খবর এএফপি’র।

আজারবাইজানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, আজারবাইজান সেনাবাহিনীর বিভিন্ন ইউনিট ২০ নভেম্বর আগদাম এলাকায় প্রবেশ করেছে। প্রায় ৩০ বছর ধরে আর্মেনিয়ার বিচ্ছিন্নতাবাদীরা এ এলাকা নিয়ন্ত্রণ করে আসছিল।

মার্কিন কংগ্রেসের সদস্য ইলহান ওমর বলেছেন, ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ করে ইহুদি বসতি গড়া ১৯৯৫ সালের অসলো শান্তিচুক্তির সরাসরি লঙ্ঘন। এসব বসতি স্থাপনে আমেরিকা সায় দিয়ে মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে। আন্তর্জাতিক আইন ভঙ্গ করে ফিলিস্তিনিদের উদ্বাস্তু করে ইসরাইল যে অপরাধ করছে, আমেরিকাও তার অংশীদার হচ্ছে।

ফিলিস্তিনিদের ঘরবাড়ি ধ্বংস করে তাদের ভূমিতে অবৈধ ইহুদি বসতি স্থাপনের কাজে ইসরাইলকে অর্থায়ন বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের একটি আসন থেকে দ্বিতীয়বারের মতো জয়ী এ মার্কিন কংগ্রেসের মুসলিম নারী সদস্য সম্প্রতি এক টুইটে এ আহ্বান জানান। খবর এএফপির।

তিনি অভিযোগ করেন এসব অবৈধ বসতি নির্মাণ করতে গিয়ে ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইল নীরবে জাতিগত শুদ্ধি অভিযান চালাচ্ছে।

অধিকৃত জর্ডান উপত্যকার সামারিয়া এলাকায় খিরবেত হামসাহ নামে নতুন আরেকটি ইহুদি বসতি বন্ধে ইসরাইলের ওপর চাপ প্রয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন ইলহান ওমর।

 

Author: hasib

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *